“ শিল্প ও বন্দর নগরীর সাথে সাথে পর্যটন শহর করাটাই আমার চ্যালেঞ্জ”  মেয়র প্রার্থী বাবু

Uncategorized অর্থনীতি প্রচ্ছদ রাজনীতি

:নিজস্ব প্রতিবেদক :–জয় বাংলা নাগরিক কমিটি মনোনীত মেয়র প্রার্থী কামরুল ইসলাম বাবু থেমে নেই। মঙ্গলবার সকাল থেকে তিনি নেমে পড়লেন।  দিনভর আকাশ ছিল মেঘাচ্ছন্ন ঘেরায় আবর্তিত। তবুও বৃষ্টিস্নাত দিনটিকেও অবশেষে করলেন জয়। এই রোদ, এই মেঘ আবার আচমকা বৃষ্টির ক্ষণকে সঙ্গী করেই নগরের ১০ নং ওয়ার্ড, ১১ নং ও ১২ নং  ওয়ার্ডের কিছু অংশে গণসংযোগ অব্যাহত রাখলেন আলোচিত কামরুল ইসলাম বাবু। এই প্রতিবেদন তৈরি হওয়া পর্যন্ত তাঁর গণসংযোগ কার্যক্রম চলছিল। সূত্রমতে, রাত ১০টা পর্যন্ত চলবে।

এদিকে কার্যত বাবু এক্সপ্রেস ছুটছে। জনশ্রেণির দুয়ারে দুয়ারে যেয়ে বাবু ভোট প্রার্থনা করছেন না । তিনি বলছেন, “প্রাথমিকভাবে যা যা করতে চাইছি এই শহরের জন্য, তা লিখিত ধারাভাষ্যে যেয়ে লিফলেটে তুলে ধরেছি। এরপর নির্বাচনী ইশতেহারে দ্বিতীয়বারের মত প্রতিশ্রুতিতে থাকবো। এরপর তৃতীয় উদ্যোগেও যাব। নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার এক সপ্তাহ আগে নারায়ণগঞ্জের জন্য শ্রেষ্ঠ ভাবনাগুলো আমি শেয়ার করতে চাই।“

 মাঝে মাঝে জনাকীর্ণ আবহ ধরা দিলেই ছোট ছোট পথসভার মত করে তিনি জানান দিলেন, “এখন সাফ কথা। যা হল,  শিল্প ও বন্দর নগরীর সাথে সাথে পর্যটন শহর করাটাই আমার চ্যালেঞ্জ। তা করে দেখাতে চাই। আর পর্যটনীয় অবকাঠামোগত দিক নিয়ে যখন কাজ ধরে ফেলবো, তখন অন্য এক নারায়ণগঞ্জকে দেখতে পাবে নগরবাসী। এক স্বচ্ছ নির্মল, পরিচ্ছন্ন, আধুনিক শহর।  পুরো বাংলাদেশের মধ্যে এই শহর তাঁর জাত চেনাতে সক্ষম হবে।“

কামরুল ইসলাম বাবুর সাথে এদিন জয় বাংলা নাগরিক কমিটির যুগ্ম আহবায়ক পর্যায়ের পদবীতে থাকা হুমায়ুন কবির, মোশ্তাক আহমেদ, সাগর শেখসহ প্রমুখ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। জনগোষ্ঠীর সাথে মাইকযোগে সংযোগে ছিলেন বন্দর থানার শাজাহান কবীর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *